‘ফুল ফুটুক, আর না-ই ফুটুক আজ বসন্ত’

= 435

 

হুমায়ুন চৌধুরী সম্পাদক ৭১টাইমস্ ডটকম:: আকাশে বহিছে প্রেম, নয়নে লাগিল নেশা/কারা যে ডাকিল পিছে! বসন্ত এসে গেছে/মধুর অমৃত বাণী, বেলা গেল সহজেই/মরমে উঠিল বাজি; বসন্তএসে গেছে/থাক তব ভুবনের ধুলিমাখা চরণে/মথা নত করে রব, বসন্ত এসে গেছে/বসন্তএসে গেছে। কোকিলের মায়াবী সুরে শ্যামলিমার জেগে ওঠার দিন। আজ ফাল্গুনের প্রথম দিন। ঋতুরাজ বসন্তের শুরু। কৃষ্ণচূড়া, পলাশ, শিমুলের রঙে মিশে যাবে প্রকৃতি। জবুথবু শীতের আষ্টেপৃষ্ঠে বন্ধন সরিয়ে প্রকৃতির ফুলে ফুলে সেজে ওঠার আগমনী বার্তা ঐশ্বর্যময় বসন্তের। বসন্ত মানে নতুন প্রাণের কলরব। বসন্ত মানেই মৃদু হাওয়ায় প্রিয় মানুষের হাত ধরে হাঁটা। মিলনের ঋতু বসন্তই মনকে সাজায় বাসন্তী রঙে, মানুষকে করে জীর্ণতা সরিয়ে নতুন শুরুর প্রেরণা। প্রকৃতি সাজে নানা রঙের ছটায়। সকাল, দুপুর, বিকেলে প্রকৃতি সাজে নিত্যদিন নতুন সাজে। রাতের সৌন্দর্য- সব মিলিয়ে মনে হয়- এক মহাশিল্পী রঙ-তুলি দিয়ে হাজেরো রঙ মিশিয়ে গোটা প্রকৃতিকে এক ক্যানভাসে ফ্রেম বন্দি করেছে। ফাগুনের আগুন লেগেছে যেন শিমুল, পলাশ বনে। বসন্তের শেষটা আবার নতুনের জন্ম দেয়। গাছের পাতাগুলো ঝরতে থাকে-বইতে থাকে দখিনা বাতাস। বসন্ত কচি পাতায় আনে নতুন রঙ, আলোর নাচন। সবুজ পাতা মাথা উঁচু করে সবুজ করে তোলে প্রকৃতিকে। সবুজ, হলুদ আর লাল- সব মিলে প্রকৃতি রূপ নেয় অপ্সরীর রূপে। সবুজ পাতার আবডালে লুকিয়ে বসন্তের দূত কোকিল শোনায় কুহুকুহু ডাক। বাংলা সাহিত্যে প্রেম আর মিলনের ঋতু বলেও বসন্তের খ্যাতি আছে। বসন্তের শুরুর দিনে রাঙা মনের সৌন্দর্য ফুটে উঠে পোশাকেও, থাকে ফাগুনের আগুন ঝরানো রং। বসন্তের বাতাস যেমন প্রকৃতিকে জাগিয়ে তোলে নতুন ভাবে। বসন্তের আগমনী গানে পুরো বাংলাদেশ যেন আটপৌরের আগল ভেঙে বসন্তের আহ্বানে জেগে ওঠে। প্রকৃতির রূপের ছটায় কিশোর- কিশোরী কিংবা বয়োবৃদ্ধরাও নিজের অজান্তে গেয়ে ওঠে ‘আহা আজি এ বসন্তে এত ফুল ফোটে/এত বাঁশি বাজে/ এত পাখি গায়…।’ গাঁয়ের সবুজ বনের আড়াল থেকে একটি কোকিল সুরে সুরে মনে করিয়ে দেয় প্রিয়জনের কথাই। যানজট আর ব্যস্ত জীবনের নানা জটে থাকা নগরীর মানুষের কানেও কালেভদ্রে কোকিল শুনিয়ে দেয় বসন্ত এসেছে। গ্রামেগঞ্জে প্রকৃতিই বলে দেয় বসন্ত এসেছে। শহরে বসে সেটা বোঝা ভার। তবে নগরে বোঝা যায় তরুণ-তরুণীর বাসন্তী রঙা সাজ পোশাকে, প্রাণের উচ্ছ্বাসে। এ বসন্ত যেন পোশাকি বসন্ত ! বসন্ত বরণে রাজধানীসহ দেশের প্রায় সব জেলা শহরের নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বরণ করে নিচ্ছে ফাগুনের প্রথম দিন। কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের সেই কালজয়ী বচনের সঙ্গে আজ প্রকৃতি মিশে গেছে, ‘ফুল ফুটুক, আর না-ই ফুটুক আজ বসন্ত’






Related News

  • ৪ বছরে ৮নং ওয়ার্ডের সকল জায়গায় উন্নয়নের ছোয়া লাগে ————– আবাদ হোসেন ভূঁইয়া
  • পুনরায় নির্বাচিত হলে ৯নং ওয়ার্ডকে মডেল ওয়ার্ডে রুপান্তর করব ……………………………………… মকবুল হোসেন ভূঁইয়া
  • ৪ বছরে যা করেছি পুনরায় নির্বাচিত হলে তার চেয়েও বেশি উন্নয়ন হবে ………. মোঃ রুহুল আমিন
  • জেনে নিনঃ কুমিল্লা নামে বিভাগ ঘোষনার যৌক্তিকতাঃ—মুক্ত মতামত 71times.com
  • উত্তরাতে ১ সপ্তাহে 250 ছাত্র-ছাত্রীকে আটক হয়েছে
  • ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক ও পাখি প্রেমিকদের শুভেচ্ছা বিনিময়ে….
  • শাহজালাল বিমানবন্দরে ইয়াবা বিক্রি করে কোটি প্রতি ইদ্রিস দম্পতি
  • ঘরে ঘরে ভুঁইফোড় লীগ : আল্লাহওয়ালা লীগ ও মিডিয়া লীগ
  • Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *